আয়রনম্যানের ‘স্বর্ণ পুরস্কার’ পেলেন কোম্পানীগঞ্জের আরাফাত

নিউজ ডেস্ক :: মোহাম্মদ সামছুজ্জামান আরাফাতই প্রথম বাংলাদেশি ক্রীড়াবিদ, যিনি স্বর্ণ পুরস্কার পেলেন। গত বছর আয়রনম্যানের চারটি প্রতিযোগিতায় আরাফাতের অর্জন ১০,৯১১ পয়েন্ট। নিয়ম অনুযায়ী গত বছরের অর্জিত পয়েন্ট ধরে বৈশ্বিক তালিকায় আরাফাতের বর্তমান অবস্থান বা র‌্যাঙ্ক নির্ধারিত হয়েছে, যা ২০২৩ সালজুড়েই থাকবে।

২০২২ সালে যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত আয়রনম্যান বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপসহ চারটি আয়রনম্যান প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে সফল হয়েছেন বাংলাদেশের ট্রায়াথলন ক্রীড়াবিদ মোহাম্মদ সামছুজ্জামান আরাফাত। এর মধ্যে দুটি ছিল পূর্ণ ও দুটি অর্ধদূরত্বের আয়রনম্যান প্রতিযোগিতা। এগুলোতে অর্জিত পয়েন্টের ভিত্তিতে আরাফাতকে তাঁর বয়স গ্রুপে স্বর্ণ পুরস্কার (গোল্ড অ্যাওয়ার্ড) দিয়েছে ‘আয়রনম্যান অল ওয়ার্ল্ড অ্যাথলেট (এডব্লিউএ)’ কর্তৃপক্ষ। সারা বিশ্বের ক্রীড়াবিদদের বয়স গ্রুপে প্রতিবছরই র‌্যাঙ্কিং তালিকা করে আয়রনম্যানের এই বৈশ্বিক কর্তৃপক্ষ।


আয়রনম্যান এডব্লিউএর তালিকা অনুযায়ী বিশ্বে ৩০–৩৪ বছর বয়সী ট্রায়াথলেটদের মধ্যে আরাফাতের অবস্থান ১৩৬তম। বাংলাদেশে তাঁর অবস্থান ১ নম্বরে। এডব্লিউএ সম্প্রতি এই তালিকা প্রকাশ করেছে। স্বর্ণ পুরস্কারের সনদও আরাফাতের কাছে পাঠিয়েছে। তাদের ওয়েবসাইটে এই তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। আয়রনম্যান এডব্লিউএ প্রোগ্রাম বছরজুড়ে ক্রীড়াবিদদের কঠোর পরিশ্রম এবং আয়রনম্যান ও আয়রনম্যান ৭০.৩ প্রতিযোগিতায় পারফরম্যান্স বিচার করে এই পুরস্কার দেয় এবং বৈশ্বিক তালিকা (র‌্যাঙ্কিং) প্রণয়ন করে। মোহাম্মদ সামছুজ্জামান আরাফাতই প্রথম বাংলাদেশি ক্রীড়াবিদ, যিনি স্বর্ণ পুরস্কার পেলেন। গত বছর আয়রনম্যানের চারটি প্রতিযোগিতায় আরাফাতের অর্জন ১০,৯১১ পয়েন্ট। নিয়ম অনুযায়ী গত বছরের অর্জিত পয়েন্ট ধরে বৈশ্বিক তালিকায় আরাফাতের বর্তমান অবস্থান বা র‌্যাঙ্ক নির্ধারিত হয়েছে, যা ২০২৩ সালজুড়েই থাকবে।

নির্দিষ্ট দূরত্বের সাঁতার, সাইক্লিং ও দৌড়ের সমন্বয়ে খেলাকে ট্রায়াথলন বলা হয়। এই খেলার ক্রীড়াবিদদের বলা হয় ট্রায়াথলেট। আয়রনম্যান হলো এক দিনে অনুষ্ঠিত পৃথিবীর কঠিনতম ট্রায়াথলন। পূর্ণ দূরত্বের আয়রনম্যানে একজন ট্রায়াথলেটকে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ৩ দশমিক ৮ কিলোমিটার সাঁতার, ১৮০ কিলোমিটার সাইক্লিং ও ৪২ দশমিক ২ কিলোমিটার দৌড় সম্পন্ন করতে হয়। আয়রনম্যান ৭০.৩ প্রতিযোগিতায় ক্রীড়াবিদকে সাঁতার, সাইক্লিং ও দৌড়ে এর অর্ধেক দূরত্ব পাড়ি দিতে হয়।

এডব্লিউএর বয়সভিত্তিক র‌্যাঙ্কিং (এজিআর) গণনা করা হয় ক্রীড়াবিদের প্রতিটি খেলা কত মিনিটে তিনি শেষ করলেন, তার ওপর ভিত্তি করে। গত বছর সামছুজ্জামান আরাফাত যুক্তরাষ্ট্রের উটাহতে আয়রনম্যান ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপ ২০২২, আয়রনম্যান মালয়েশিয়া, আয়রনম্যান ৭০.৩ দেসারু কোস্ট (মালয়েশিয়া) ও আয়রনম্যান ৭০.৩ গোয়া (ভারত) থেকে ১০,৯১১ পয়েন্ট অর্জন করেন। এই পয়েন্টই তাঁকে স্বর্ণ পুরস্কার এবং বিশ্বতালিকায় ১৩৬তম আয়রনম্যানের স্বীকৃতি এনে দিয়েছে। এডব্লিউএর হিসাব অনুযায়ী বছরব্যাপী আয়রনম্যানের বিভিন্ন আয়োজনে বয়স গ্রুপ ধরে ক্রীড়াবিদদের ২ শতাংশ স্বর্ণ, ৫ শতাংশ রৌপ্য ও ১০ শতাংশ ব্রোঞ্জ পুরস্কার পান।

আয়রনম্যানের বৈশ্বিক তালিকায় স্বর্ণ পুরস্কার পাওয়ার পর আরাফাত বলেন, ‘এত দিন আয়রনম্যান প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে চ্যালেঞ্জ সম্পন্ন করাই ছিল উদ্দেশ্য। এখন এই স্বীকৃতি আরও ভালো করার উৎসাহ জোগাবে। বাংলাদেশের সব ট্রায়াথলেটের জন্যই এটি অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করবে। আমি নিজে প্রতিদিনই আগের দিনের চেয়ে ভালো করার চেষ্টা করি। সে অনুযায়ী অনুশীলন করে যাচ্ছি।’

গত বছরের সাফল্যের কারণে চলতি বছরের দুই ঘরানার আয়রনম্যান বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নেওয়ার যোগ্যতা অর্জন করেছেন মোহাম্মদ সামছুজ্জামান আরাফাত। এ বছর ফ্রান্সে অনুষ্ঠেয় আয়রনম্যান ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপ ও ফিনল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় আয়রনম্যান ৭০.৩ ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নেবেন তিনি। পেশাজীবনে আরাফাত বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন উপপরিচালক। ২০১৭ সাল থেকে এ পর্যন্ত পূর্ণ ও অর্ধদূরত্বের নয়টি আয়রনম্যান প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে চ্যালেঞ্জ সম্পন্ন করেছেন তিনি।


শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.