কোম্পানীগঞ্জে রোকেয়া দিবসে সংবর্ধনা পেলেন ৫ নারী

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি :: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবসে '  সবার মাঝে  ঐক্য গড়ি, নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধ করি 'এ প্রতিবাদ্যকে সামনে রেখে  উপজেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষক অধিদপ্তরের উদ্যোগে সংবর্ধনা ও আলোচনা সভা  অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) সকাল ১০ টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ আলোচনা সভা ও প্রতি বছরের ন্যায় এবারও  পাঁচ  জয়িতাকে সংবর্ধনা দেয়া হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মেজবা উল আলম ভূঁইয়া।

উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা তাহমিনা তামান্না'র  সভাপতিত্বে ও উপজেলা তথ্য আপা মোসাম্মেদ শাপলা আক্তার এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন,উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) পিয়াস চন্দ্র দাস,উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বেলাল হোসেন, উপজেলা  শিক্ষা অফিসার মোঃ নূরুজ্জামান।  কোম্পানীগঞ্জ থানা সেকেণ্ড অফিসার আকতার হোসাইনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

আলোচনা সভা শেষে পাঁচজন সফল জয়িতাকে সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদ প্রদান করা হয়। সফল জননী  হিসেবে চরকাঁকড়া ইউনিয়নের যষদা রানী দাস, শিক্ষা চাকুরীর ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী সিরাজপুর ইউনিয়নের নাজমা বেগম, নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে ফেলে নতুন জীবন শুরু করা নারী চরহাজারী ইউনিয়নের রাহেলা আক্তার, সমাজ উন্নয়নে অবদান রাখা নারী বসুরহাট পৌরসভার পারভীন আক্তার ও অর্থনৈতিক ভাবে সাফল্য অর্জনকারী নারী উদ্যোক্তা সিরাজপুর ইউনিয়নের নিগার সুলতানাকে এই সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদ প্রদান করা হয়।

এসময় অনুষ্ঠানে উপজেলার জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিবিদ, সুশীল সমাজ, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও গণমাধ্যমের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বাংলার নারী সামাজের মুক্তির অগ্রদূত বেগম রোকেয়া  এমন এক অসামান্য  নারী, যিনি এ দেশের অবহেলিত নারী সমাজকে দিয়েছেন এক অভাবনীয়  আলোকবর্তিকার সন্ধান। ফলে তাঁর স্মরণে প্রতি বছর এ নারী দিবস পালন করা হয়। তিনি ১৮৮০ সালে ৯ ডিসেম্বর রংপুর জেলার মিঠা পুকুর উপজেলায় পায়রাবন্দে বিখ্যাত জমিদার বংশে জন্মগ্রহণ  করেন। 


শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.