জন্মনিবন্ধন সংশোধনে উৎকোচ দাবি করায় কোম্পানীগঞ্জে রামপুর ইউপি সচিবকে গণধোলাই

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি :: জন্মনিবন্ধন সংশোধন করার জন্য উৎকোচ (ঘুষ) দাবি করায় নোয়াখালী'র কোম্পানীগঞ্জে রামপুর ইউনিয়নের সচিবকে গণধোলাই দেয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনা ঘটে  আজ ২৯ আগষ্ট সোমবার দুপুর ১২ ঘটিকায়।

সূত্রে জানা গেছে, রামপুর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা  ইউনুছ তার বোনের জন্ম নিবন্ধন কার্ডে বয়স বেশী হওয়ায় বয়স কমানোর জন্য সচিবের কাছে আবেদন করেন। সচিব তার কাছ থেকে ৩ হাজার ৫ শ' টাকা উৎকোচ( ঘুষ) দাবী করে। ইউনুছ টাকা না দেয়ায়  সচিব  ক্ষিপ্ত হয়ে তার বোনের কাজ বিলম্বিত করে। সোমবার দুপুরে নিবন্ধন কার্ডের জন্য গেলে তা না দিয়ে  তার সাথে দুর্ব্যবহার করেন। পরে ইউনুছ আরো কয়েকজনকে সাথে নিয়ে ইউপি সচিব সেকান্তরকে গণধোলাই দেয়। এ পর্যন্ত দ্বিতীয় বারেরমত গণ ধোলাইয়ের শিকার হয় ইউপি সচিব সেকান্তর। 

ইউনুছ নিজেকে ছাত্রলীগ কর্মী ও চেয়ারম্যান সালেকিন রিমনের অনুসারী বলে দাবী করেন।

সূত্র আরো জানায়, রামপুর ইউনিয়ন পরিষদের সচিব সেকান্তর হোসেন  দীর্ঘ দিন ধরে সরকারি ফি উপেক্ষা করে মানুষের নিকট থেকে অতিরিক্ত টাকা (ঘুষ) গ্রহণ করার অভিযোগ রয়েছে।  ইউপি সচিব সেকান্তর হোসেন  জন্ম নিবন্ধনসহ বিভিন্ন কাজের জন্য গেলে তাকে  অতিরিক্ত টাকা দিতে হয়। টাকা না দিলে ইউনিয়নের সেবা নিতে আসা সকল মানুষজনকে  হয়রানি ও ভোগান্তির শিকার হতে হয়।

এর কিছু দিন পূর্বেও সেবা নিতে আসা এক ব্যক্তির নিকট থেকে ঘুষ নিয়ে কাজ না করে আরো বেশি  উৎকোচ দাবী করেন। পরে ওই ব্যক্তি কয়েকজন লোক নিয়ে এসে  তাকে গণধোলাই দিয়ে থাকে। তার বিরুদ্ধে শত শত অভিযোগ রয়েছে। সেকান্তর কবিরহাট উপজেলার দিনোমনি এলাকার বাসিন্দা। 

এ ব্যাপার এক ভোক্তভোগি জানান, এই ইউপি সচিবের লাজ-লজ্জা কম। সে ঘুষ ছাড়া কোন কাজ করেনা। আমরা এর শাস্তি ও তার বদলি চাই।

এ বিষয়ে জানার জন্য  ইউপি সচিব সেকান্তর হোসেন'র মুঠোফোনে একাধিক বার ফোন করা হলেও তিনি ফোনটি রিসিভ করেননি।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো: মেজবা উল আলম ভূঁঞা বলেন, এ বিষয়ে আমার জানানেই। কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে  সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.