কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা শিক্ষক সমিতির ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন

 কোম্পানীগঞ্জ  প্রতিনিধি:

বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা শাখার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ শনিবার সকাল ১১টায় বসুরহাট পৌর  মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত  থেকে বক্তব্য রাখেন,বসুরহাট



পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা, সম্মেলন সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের বিদায়ী সভাপতি সুলতান আহমেদ চৌধুরীর  বাবুল, এ সময়ে  যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক  খাজা জসিম উদ্দিন এর পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন  কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার  শাহ্ মোহাম্মদ কামাল পারভেজ,নোয়াখালী জেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতি আবুল কাশেম,সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ আলমগীর,কোম্পানীগঞ্জ শিক্ষক সমিতির নব নির্বাচিত সভাপতি আমির হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ ওমর ফারুক

সহ -সভাপতি আব্দুন নাছির,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দীন সহ  আরও অনেকে।
বক্তব্যে প্রধান অতিথি মেয়র আব্দুল কাদের মির্জা বলেন, আমার  আব্বা একজন স্কুল শিক্ষক ছিলেন, আমরা এক সময়ে দারিদ্র্যতার সাথে লড়াই করে ছিলাম।অত্যান্ত কষ্টের  সাথে দিনাতিপাত কর ছিলাম।আজ ছাত্র ছাত্রীরা কষ্ট করা লাগেনা উপবৃত্তির টাকা পাচ্ছে। শিক্ষকরা বৈশাখী ভাতা সহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা  পাচ্ছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনেক অবকাঠামো উন্নয়ন হয়েছে।আজকে আপনরা অনেক ভালো আছেন। বাংলার প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষকদের উন্নয়নের জন্য অনেক করছে। অস্বীকার করতে পারবেননা। অপ্রিয় হলেও সত্য কথা শেখ হাসিনার উন্নয়নের কথা অনেকেই স্বীকার  করেন না। আজকে যদি তা স্বীকার  না করেন তা হলে নিজেদের  কাছে নিজেরা দায়ী  থাকবেন।

জেলা শিক্ষক  সমিতির সভাপতি আবু্ল কাশেম তার বক্তব্যে বলেন,সারা দেশে গত  কিছু দিন ধরে মিডিয়ার বধন্যতায় দেখতে পাচ্ছি শিক্ষক লাঞ্ছিত হচ্ছে, শিক্ষককে  নিগ্রিহিত  করা হচ্ছেে। ঘটনা ক্রমে- ক্রমে বেড়ে যাচ্ছে। সংগঠনের জায়গায় থেকে যদি অনুপস্থিতি থাকে তা হলে নিজেকে টিকিয়ে রাখা যাবেনা। সে জন্য সংগঠনের অনিবার্যতা আছে।সংগঠনের অধিকার আদায়ের জন্য সামনে  আন্দোলন, সংগ্রামের ডাক আসতে পারে।  দাবী আদায়ের ডাকে সকল শিক্ষককে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহবান জানান।

মো: আলমগীর বলেন,এখন সব চেয়ে ক্যারেন্ট অ্যাফেয়ার্স  ইউকেইন এবং রাশিয়ার যুদ্ধের কারন বলা হয়েছে,তেলের দাম মূল্য বৃদ্ধি  করছে,  বজারে দ্রব্য মূল্য উধ্বগতি।এ উধ্বগতিতে শিক্ষকরা কোন ভাব রেহায় পায়না,তাই আমরা এ সম্মে়ন থেকে আমরা মনে করি বেসরকরী শিক্ষকদের এ দ্রব্যমূল্যের সাথে তা়ল মিলিয়ে  জীবন জিবিকা অতিবহিত  করতে ১০% মহার্ঘ ভাতা দেয়া হোক।  এদিকে মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষকদের জাতীয়  করণ করারও দাবী তোলেন এ শিক্ষক নেতা। সম্মেলনে আগামী ৩ বৎসরের জন্য আমির হোসেন কে সভাপতি, ওমর ফারুক কে সাধারণ  সম্পাদক ঘোষণা করা হয়।


শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.