বসুরহাট পৌরসভার বাজেট পেশ

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি :: নোয়াখালী’র বসুরহাট পৌরসভার ২০২১-২০২২ অর্থ বছরের বাজেট ঘোষণার পূর্বে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে মেয়র আবদুল কাদের মির্জা বলেন, সাংবাদিকরা আপনারা চুপ কেন? ভয়পান কিনা জানি না। সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির ও সিএনজি চালক আলা উদ্দিনকে কারা হত্যা করেছে তা নোয়াখালীর পুলিশ প্রশাসন দিয়ে সুষ্ঠু তদন্ত করে বের করা সম্ভব নয়। বিচার বিভাগীয় তদন্ত করলে তা বেরিয়ে আসবে, কারা এ হত্যার সাথে জড়িত? আমার পৌরসভাতে প্রতিপক্ষরা ২ হাজার গুলি বর্ষণ করেছে। অথচ তাদের কাউকে গ্রেফতার না করে আমার অনুসারীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার করে হয়রানী ও নির্যাতন করছে। শুরুর দিকে দায়সারাভাবে কয়েকজনকে গ্রেফতার করলেও পুলিশ প্রকৃত আসামীদের গ্রেফতার করছে না।

বৃহস্পতিবার (৩জুন) বিকেল ৪টায় বসুরহাট পৌরসভার মেয়র কার্যালয়ে মতবিনিময় শেষে আগামী অর্থবছরে ৮৩ কোটি ৬৪ লাখ ২৯ হাজার ৩শত ৯৩ টাকার প্রস্তাবিত বাজেট ঘোষণা করেন তিনি।

প্রস্তাবিত বাজেটের আয়ের খাতে- ট্যাক্সেস ৫ কোটি ৭৫ লাখ, রেইট ৫৫ লাখ, ফিস ১৫ কোটি ১২ লাখ ২০ হাজার, রাজস্ব খাতে সরকারী অনুদান ৪৫ লাখ, উন্নয়ন খাতে সরকারী অনুদান, প্রকল্প সহায়তা ও রাজস্ব উদ্বৃত্ত ৫৫ কোটি ৫০ লাখ, মূলধন আয় ২ কোটি ৯০ লাখ ৯৫ হাজার ৮শত ৪৮, আগত তহবিল ১ কোটি ৫৩ লাখ ৪৩ হাজার ৫শ ৪৫ ও অন্যান্য খাতে ১ কোটি ৮২ লাখ ৭০ হাজার টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

ব্যয়ের খাতে- সাধারণ সংস্থাপন ৩ কোটি ৪৯ লাখ ২৪ হাজার ৬শত ৯৬ টাকা, শিক্ষা ও সংস্কৃতি ৩৭ লাখ, সামাজিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে অনুদান ও অন্যান্য ২২ লাখ, স্বাস্থ্য ও পরিচ্ছন্নতা ২ কোটি, কর আদায় ও অন্যান্য ২ লাখ ৫০ হাজার, পরিচালন, রক্ষণাবেক্ষণ ও অন্যান্য ৪ কোটি ৩৩ লাখ ১০ হাজার, রাজস্ব হতে উন্নয়ন কাজ ১২ কোটি, অবকাঠামো উন্নয়ন ও রক্ষণাবেক্ষণ ৫৫ কোটি ৫০ লাখ, মূলধন ব্যয় ২ কোটি ৯০ লাখ ৯৫ হাজার ৮শত ৪৮ ও সমাপনী স্থিতি ২ কোটি ৭৯ লাখ ৪৮ হাজার ৮শত ৪৯ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

২০২১-২২ অর্থ বছরের এ বাজেটে সর্বোচ্চ বসুরহাট পৌরসভার অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পে আয় ও ব্যয়ের খাতে ৩০ কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়াও আয়ের খাতে পৌরমার্কেট সেলামী ১৫ কোটি, স্থাবর সম্পত্তি হস্তান্তরের উপর কর ৩ কোটি, ইমারাত নির্মাণ ১ কোটি ৫০ লাখ ও ব্যয়ের খাতে গরীবদের জন্য ঔষধপত্র ও চিকিৎসা ২৫ লাখ, দুর্যোগ/মহামারী সংক্রান্ত আবশ্যকীয় ব্যয় ৪০ লাখ নির্ধারণ করে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন পৌর সচিব মোঃ হালিম উল্যাহ, সহ-প্রকৌশলী কাজী হারুন উর রশীদ, প্যানেল মেয়র নুর হোসেন ফরহাদ, কাউন্সিলর রৌশন আরা মিলি, মাকসুদাহ আক্তার, হাছিনা আক্তার, এবিএম ছিদ্দিক, নুর নবী সবুজ, আবুল হোসেন আরজু, মোঃ রাসেল, হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মাঈন উদ্দিন ও গণমাধ্যমকর্মী।


শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.