মাদকের সাথে জড়িতদের প্রয়োজনে ক্রসফায়ার- আবদুল কাদের মির্জা

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি :: আমরা বিবেকের তাড়নায় মাদকের বিরুদ্ধে নেমেছি। মাদকের করালগ্রাসে অনেক তরুণ, যুবক অকালে মৃত্যু বরণ করছে, অনেকের পারিবারিক জীবন ধ্বংস হচ্ছে, সামাজিক পরিবেশ বিনষ্ট হচ্ছে, শিক্ষাজীবন ধ্বংস হচ্ছে, দেশের উন্নয়ন মাদকের কারনে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। এ অবস্থা চলতে দেয়া যায় না, এটি আমাদেরকে বন্ধ করতে হবে। এখানে পুলিশ প্রশাসনের লোক আছে তাদের কাছে মাদক বিক্রেতা ও সেবনকারীদের তালিকা রয়েছে এবং যিনি বৃহত্তর নোয়াখালীর র‌্যাবের দায়িত্বে আছেন তার সাথেও আমার আলাপ হয়েছে, প্রয়োজনে মাদকের সাথে জড়িতদের ক্রসফায়ারে দেয়া হবে। আজ সোমবার সন্ধ্যায় স্থানীয় রামপুর ইউনিয়নের বামনী বাজারে মাদক বিরোধী সমাবেশে উপরোক্ত কথগুলো বলেন, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

মাদক বিরোধী সমাবেশে তিনি আরো বলেন, আমাদের এই সমাবেশে অনেকেই আছেন যারা মাদক বিক্রয় ও সেবনের সাথে জড়িত। দিনের বেলা তারা বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ছত্রছায়ায় থাকে আর রাতের বেলা তারা এক। এদের প্রতি বেশি করে নজর রাখতে হবে। মাদক ব্যবসায়ী ও সেবণকারীদের তালিকা বিভিন্ন সংস্থার নিকট পুলিশ প্রেরণ করেছে। এক সপ্তাহের সময় দিয়ে গেলাম মাদকের সঙ্গে যারা জড়িত তারা মাদক বন্ধ করুন। মাদকের সাথে জড়িত ২/১জনকে চাকুরীও দিয়েছি তারাও মাদক থেকে দূরে সরে নাই, এখনো পরিবর্তন হয় নাই। সাবধান করে দিচ্ছি, কোন অবস্থাতেই এদেরকে ছেড়ে দেয়া হবেনা। আজকে লজ্জ্বা লাগে জনপ্রতিনিধিদের কেউ কেউও মাদকের সাথে জড়িত, তাদের প্রতি অনুরোধ করব মাদক থেকে ফিরে আসুন অন্যথায় আপনাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমরা কথায় নয় কাজে বিশ্বাস করি। আজকের এই সমাবেশ জনসচেতনতা বৃদ্ধির জন্য। আপনাদের সহযোগিতা অত্যান্ত জরুরী। আমরা কোম্পানীগঞ্জ থেকে মাদককে নির্বাসনে পাঠাবো ইনশাআল্লাহ।

রামপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি নূর আহম্মদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও যুগ্ন-সম্পাদক সম্পাদক শাহজামাল সবুজের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান সাহাব উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি খিজির হায়াত খান, বিশিষ্ট কলামিষ্ট ও লেখক রফিকুল ইসলাম চৌধুরী, রামপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইকবাল বাহার চৌধুরী, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি নিজাম উদ্দিন মুন্না, হাজারীহাট বিএম কলেজের ইংরেজি প্রভাষক ঝিল্লুর রহমান টিপু, ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি হাসান আহমেদ, সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ।


শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.