কোম্পানীগঞ্জে ভিজিএফের চাল জব্দ, তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

0
82
https://www.noakhalitimes.com

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি :: নোয়াখালী কোম্পানীগঞ্জের চরকাঁকড়া ইউনিয়নে ঈদুল আযহা উপলক্ষে ভিজিএফ’র চাল ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্রের উদ্যোক্তা রিয়াদের বাড়ী থেকে জব্দ করে কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশ। রবিবার (২৬জুলাই) রাত সাড়ে ৯টায় তার বাড়ী থেকে এ চালগুলো উদ্ধার করে। এ ঘটনায় উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তাকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

জানা যায়, ওই দিন বিকেলে ৪নং চরকাঁকড়া ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্রের উদ্যোক্তা মোঃ রিয়াদ চালের বস্তা নিয়ে সিএনজি চালিত অটোরিক্সা যোগে বাড়ি নিয়ে যাওয়ার সময় পথে চরকাঁকড়া ইউনিয়নের নতুন বাজারে স্থানীয় এলাকাবাসী মোবাইল ফোনে ছবি ধারণ করে রাখে। পরে এ খবর কোম্পানীগঞ্জ থানাকে অবহিত করলে রাত সাড়ে ৯টার দিকে কোম্পানীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মহিন উদ্দিন চরকাঁকড়া ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডে রহিত উল্যাহ মাঝি বাড়ির তথ্য সেবা কেন্দ্রের উদ্যোক্তা রিয়াদের বসত ঘর থেকে ভিজিএফ’র ৩টি চালের বস্তায় ১৫০ কেজি চাল জব্দ করে।

চরকাঁকড়া ইউনিয়ন পরিষদ সূত্র জানায়, পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে সরকারিভাবে চরকাঁকড়া ইউনিয়নে তিন হাজার ৪৯০টি দুস্থ গোষ্ঠীর সহায়তা কর্মসূচির (ভিজিএফ) কার্ডের বিপরীতে ৩৪ মেট্রিক টন ৯০ কেজি চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। কার্ডপ্রতি ১০ কেজি করে চাল বরাদ্দ রয়েছে। রোববার সকাল নয়টায় এই চাল বিতরণ শুরু হয়।

এ বিষয়ে চেয়রম্যান হাজী সফি উল্যাহ বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের তথ্য সেবা কেন্দ্রে রিয়াদসহ অপর তিনজন লোক অনলাইনে কাজ করে। কিন্তু এ কাজে তাদের সরকারিভাবে কোন বেতন-ভাতা বরাদ্দ নাই। ফলে আমরা একটি রেজুলেশন করে সকল ইউপি সদস্যদের তরফ থেকে তাদের চারজনকে ৫শ কেজি চাল দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। তাদের নামে বরাদ্দকৃত ওই চালগুলো ভিন্ন ভিন্ন সময় না নিয়ে একসাথে নেয়ায় লোকজনের চোখে পড়ে। আমি ব্যক্তিগতভাবে ইউনিয়ন পরিষদে আসা সকল ত্রাণ যথাযথাভাবে বিতরণে যথেষ্ট আন্তরিকতার সহিত বিতরণ করে আসছি। অনৈতিকভাবে আমার ইউনিয়ন পরিষদ থেকে সরকারের বরাদ্দকৃত কোন চাল অনিয়ম করার সুযোগ নেই এবং আগামীতেও থাকবে না।

এ বিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত ট্যাগ কর্মকর্তা (মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার) শাহ কামাল পারভেজ এর সাথে আলাপ করলে তিনি জানান, উপজেলা নির্বাহী অফিসারে দপ্তর থেকে চরকাঁকড়া ইউনিয়ন পরিষদে সরকারের বরাদ্দকৃত চাল বিতরণের জন্য ট্যাগ কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব দিলেও এ চাল বিতরণের সময় আমার সাথে যোগাযোগ না করে তারা চালগুলো বিতরণ করে। আমি এ খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবহিত করেছি এবং এ বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা ফজলুল করিমকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে