কোম্পানীগঞ্জে পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে মিথ্যা মামলায় জেল হাজতে

সংবাদ সম্মেলন ভুক্তভোগী পরিবারের দাবী

0
354
https://www.noakhalitimes.com

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি :: নোয়াখালী কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে অপহরণের মিথ্যা মামলার শিকার হয়ে কারা বরণ করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভুক্তভোগীর মা ছকিনা খাতুন। সে উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের হামিদ আলী হাজী বাড়ীর মৃত নাছির আহম্মেদ’র স্ত্রী।

বুধবার (১৪ অক্টোবর) বিকেল ৪টায় কোম্পানীগঞ্জ সাংবাদিক ইউনিয়ন কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী ছকিনা খাতুন লিখিত বক্তব্যে বলেন, ২০১৬সালে তার ছেলে গিয়াস উদ্দিন’র কাছ থেকে বিদেশ নেয়ার নামে পার্শ্ববর্তী বাড়ীর আবদুস সোবহানের ছেলে নজরুল ইসলাম সুজন (৩৫) ভিসা বাবদ অগ্রিম ৩লক্ষ ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। দীর্ঘ ৪ বছর অতিবাহিত হওয়ার পরও সে আমার ছেলে জামালকে বিদেশ নিতে ব্যর্থ হয়। সুজন বিভিন্ন অজুহাত দিয়ে টাকা পরিশোধে গড়িমসি করে। ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে এ টাকা তাকে দেয়ায় এখন ব্যাংক আমার বাড়ী ঘর নিলাম ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাকে ডেকে টাকা দেয়ার ছাপ সৃষ্টি করলে তার স্ত্রী মাহেরা বেগম মাহিন বাদী হয়ে গত শনিবার (১০ অক্টোবর) আমার ছেলে কামাল উদ্দিন, আজিজুল হক ইমন, মাহমুদ, পিয়াস, জিহাদ, নোবেল ও গিয়াস উদ্দিনকে আসামী করে মিথ্যা অপহরণ মামলা সাজিয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানায় মামলা করে। আমার বাড়ী থেকে তার বাড়ী একশ গজের মধ্যে হলেও পুলিশ কোন রকম তদন্ত না করে আমার নির্দোষ ছেলে কামাল উদ্দিন ও আজিজুল হক ইমন, মাহমুদ এবং পিয়াসকে গ্রেফতার করে কারাগারে প্রেরণ করে।

অপরদিকে গত সোমবার (১২ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ৯টায় আমার ছেলেদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়ার কারণ জানতে চাইলে মোঃ আতাউল গণি স্বপন (৩০), মোঃ নজরুল ইসলাম সুজন (৩৫) ও মাহেরা আক্তার মাহিন (৩৮) আমাকে বেদড়ক পিটিয়ে আহত ও শ্লীলতাহানী করে আমার সাথে থাকা ৯০ হাজার টাকা মূল্যের স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়। গত মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) তাদের বিরুদ্ধে মামলা করলেও পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার করছে না। আসামীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে এবং আমাকেও আমার পরিবারের লোকজনকে হত্যা করার হুমকি দিচ্ছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে